যশোরে স্কুল মাঠে ভবন নির্মাণ, খেলার মাঠ বিলুপ্তির পথে

সুমন চক্রবর্তী, যশোর  আজকের ডাক | প্রকাশিত: বুধবার, মার্চ ২০, ২০১৯ ১:০৩ অপরাহ্ণ  

যশোর সদরের সুলতানপুর নূরুল ইসলাম মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও প্রাথমিক বিদ্যালয় একই প্রাঙ্গনে অবস্থিত। প্রায় ৩০ বছর ধরে বিদ্যালয় দুটি স্বগৌরবে শিকড় বিস্তার করে যাচ্ছে। খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিতে অত্র অঞ্চলের সেরা প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর হয়েছে। বিদ্যালয়টির সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হলো সুপ্রসস্থ একটি বড় সমতল খেলার মাঠ। স্কুল সময়ে বিদ্যালয়ের ছেলেমেয়েরা ও বিকালে এবং ছুটির দিনে এলাকার ক্রীড়াপ্রেমীরা খেলা করতে ও দেখতে মেতে ওঠে।

কিন্তু বর্তমানে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠটিকে হত্যা করা হচ্ছে। খেলার মাঠের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের মধ্য দিয়ে এলাকার ঐতিহ্যবাহী খেলার মাঠটির বিলুপ্তি ঘটতে যাচ্ছে। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি ও শিক্ষকদের উদাসিনতার কারনে আজ মাঠটি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়টির বর্তমান ভবনটি যেখানে আছে সেটি প্রায় ২০ বছরের পুরোনো ভবন যেটি জরাজীর্ণ অবস্থায় আছে। গত ২০১৮ সালে যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান জননেতা শাহীন চাকলাদার ১ লক্ষ টাকা উন্নয়নের জন্য প্রদান করলে জরাজীর্ণ ও ঝুকিপূর্ণ ভবনটি প্রাথমিক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্লাস্টার ও রংচং করে চকচকে করে ফেলে। আবার পুরাতন ভবনটির পেছনে অন্ততঃ ১০০ ফুট জায়গা বেকার হয়ে পড়ে আছে; যদি পুরাতন ভবনটি ভেঙ্গে নতুন ভবনটি আরেকটু পিছিয়ে করা যায় তাহলে বিদ্যালয়ের মাঠটি আরো অনেক প্রসস্থ হয়।

জননেত্রী শেখ হাসিনা যেখানে খেলাধুলার মানোন্নয়নের জন্য হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে চলেছেন, হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে নতুন নতুন স্টেডিয়াম তৈরি করছেন। অথচ সেই দেশেই শুধুমাত্র শত্রুতার খাতিরে, ভিন্ন রাজনৈতিক মতাদর্শের কারণে, পরিকল্পিতভাবে শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যকে নস্যাৎ করতে মাঠের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন তৈরি করছে একটি মহল।

মাননীয় এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী মহোদয়, জেলা প্রশাসক মহোদয়, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মহোদয় সহ এতদাসঙ্গে সম্পর্কিত সকল সচেতন মানুষদের দৃষ্টি আকর্ষন করছি যে পুরাতন ভবনটি ভেংগে ফেলে সেই জায়গায় ভবনটি তৈরি করে অত্র বিদ্যালয় দুটির বাচ্চাদের লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাখুলার চর্চা করার সুযোগ দিয়ে মানুষের মত মানুষ হবার জন্য সহায়তা করুন।

 

-এডি/এইচএ

 

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ