এ টি এম শামসুজ্জামানের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে যা বললেন চিকিৎসকরা

 আজকের ডাক | প্রকাশিত: রবিবার, মে ১২, ২০১৯ ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ  

ঢাকায় সিনেমার বরেণ্য অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান। গুরুতর অসুস্থ হয়ে বেশ কয়েকবার লাইফসাপোর্টে গিয়েছেন এই অভিনেতা। রাজধানীর পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ায় অবস্থিত আজগর আলী হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চলছে তার চিকিৎসা।

এরই মধ্যে বেশ কয়েকবার কে বা কারা এ টি এম শামসুজ্জামানের মৃত্যু গুজব ছড়িয়েছে। আশার কথা হলো- তিনি বেঁচে আছেন। প্রাণভরে বাতাসে নিশ্বাস ফেলছেন। এমনকি ডাক দিলে সাড়াও দিচ্ছেন তিনি। শুধু তাই নয়, এই অভিনেতা হাসছেন, কাঁদছেনও।

চিকিৎসকেরা এখনও তাকে নিয়ে আশাবাদী। পাশাপাশি তারা এটাও বলছেন, ‘বিপদ এখনও কেটে যায় নি। যেকোনো সময়, যেকোনো কিছু ঘটতে পারে।’

দুঃখের বিষয় হলো- নিয়ম করে দুই বেলা এই বরেণ্য অভিনেতার মৃত্যু গুজব ছড়ানো হচ্ছে ফেসবুকে! অতি উৎসাহী কেউ কেউ এ গুজব ছড়াচ্ছেন। আর যাচাই-বাছাই না করেই সেগুলো শেয়ার দেয়া হচ্ছে পানির স্রোতের মতো।

সর্বশেষ শনিবার (১১ মে) রাতেও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এ টি এম শামসুজ্জামানের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়েছিল, যা একেবারে ডাহা মিথ্যা। এতে তার পরিবারের লোকজন হতাশ ও প্রচন্ড বিরক্ত।

এ টি এম শামসুজ্জামানের চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা কর্তব্যরত চিকিৎসক ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিশেষজ্ঞ মো: মতিউল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, চিকিৎসা শুরুর কয়েক দিন পর তাকে লাইফসাপোর্ট দেয়া হয়।

রপর আবার স্বাভাবিক নিয়মে শ্বাস নিতে পারলে লাইফসাপোর্ট খুলে দেয়া হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে ৪ দিন আগে তাকে আবার লাইফসাপোর্ট দেয়া হয়।
তিনি আরও জানান, গত শনিবার সকাল থেকেই তুলনামূলকভাবে ভালো আছেন তিনি (এ টি এম শামসুজ্জামান)।

তার লাইফসাপোর্ট যন্ত্র খুলে নেয়া হয়েছে। তিনি যথেষ্ট সাড়া দিচ্ছেন। সালাম দিলে হাসি দিয়ে জবাব দিচ্ছেন। তবে এখনো আমরা তাকে বিপদমুক্ত বলতে পারছি না। কারণ, তিনি মূলত বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছেন।

এই অবস্থায় সমস্যা একটি অঙ্গ থেকে অন্য অঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে। কেবিনে দেয়ার আগে পর্যন্ত আমরা কোনোভাবে বিপদমুক্ত বলতে পারছি না। বর্ষীয়ান অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামানের স্ত্রী রুনি জামান অনেকটা আক্ষেপ নিয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আগের তুলনায় সুস্থ হলেও কাল (শনিবার) রাত থেকে মানুষের যন্ত্রণায় আমরা ঘুমাতে পারিনি।

কে বা কারা আবারও ওনাকে (এ টি এম শামসুজ্জামান) মেরে ফেলছেন। সারা রাত মানুষ খবর নিয়েছে। এমন খবর কে ছড়ায়, তাকে দেখার খুব ইচ্ছা। তার কি ক্ষতি আমরা করেছি।’ এমনটা বলে কান্না করে দেন রুনি জামান।

রুনি জামান আরও বলেন, ‘আমরা মনে করছি, উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নিতে পারলে ভালো হতো। আমরা প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে আছি।’ উল্লেখ্য, বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা, পরিচালক, কাহিনিকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপ লেখক ও গল্পকার এ টি এম শামসুজ্জামানকে এর আগেও ৮-৯ বার মেরে ফেলা হয়েছে।

অবশ্য সেসময় তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেছিলেন,‘আমি এখনো মরিনি। এর আগেও আমাকে আট-নয়বার যারা মেরেছে, তারা ইতর প্রকৃতির!’ এবার আর তিনি প্রতিবাদ করতে পারেন নি।

-এডি/এইচএ

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ

%d bloggers like this: