গোপালগঞ্জে ডায়রিয়া পরিস্থিতি ভয়াবহ : খোলা আকাশের নিচে ডাইরিয়া রোগী

দুলাল বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ  আজকের ডাক | প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, মে ১৬, ২০১৯ ৮:০৪ পূর্বাহ্ণ  
রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে

প্রচন্ড গরমে গোপালগঞ্জে ডায়রিয়া পরিস্থিতি এখন মারাত্নক আকার ধারণ করেছে। প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা। প্রতিদিন ডায়রিয়া ওয়ার্ডে আসছেন নতুন-নতুন রোগী। ওয়ার্ডে আসন সংকুলান না হওয়ায় রোগীদের ঠাই হচ্ছে বারান্দা, রেইন শেড ও খোলা আকাশের নিচে। যেখানে গরু চড়ছে।

এমতাবস্থায়  রোগী ও তার স্বজনরা খোলা ড্রেনের পচা, ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে এবং মশা- মাছির উপদ্রবে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। গত সাত দিনে ৩শ’র বেশি ডায়রিয়া রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। প্রতিদিন ৩০/৩৫ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। এদিকে অতিরিক্ত রোগী আসায় হাসপাতালে স্যালাইন সংকট দেখা দিয়েছে। যে কারনে বাইরে থেকে কিনে এনে স্যালাইন দিতে হচ্ছে রোগীদের। গোপালগঞ্জ ২৫০-শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে রয়েছে মাত্র ১৬টি বেড। তীব্র গরমে প্রতিদিনই নতুন নতুন রোগী ভর্তি হচ্ছে। ফলে মাত্র ১৬ টি বেড থাকায় জায়গার সংকুলান না হওয়ায় বাধ্য হয়েই কোন কোন বেডে দুইজন রাখার পাশাপাশি বারান্দার নীচে, ওয়ার্ডের বাইরে, রেইন সেডের নীচে ও খোলা জাগায়  রোগীদের রেখে চিকিৎসা দিতে হচ্ছে।

গত ০৭ দিনে অন্তত সাড়ে তিন’শ রোগী ডায়রিয়ার চিকিৎসা নিয়েছেন। সেই সাথে হঠাৎ করে রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালে দেখা দিয়েছে ঔষধ সংকট। রুম সংকটের কারনে রোগীদের বারান্দা ও বাইরে রাখায় ঠিকমত চিকিৎসা সেবা দেয়া যাচ্ছে না বলে জানান ওয়ার্ড ইনচার্জ।

হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা: অসিত কুমার মল্লিক বলেন, তীব্র গরমে হঠাৎ করে হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় রোগীদের বাইরে রেখে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। সবাই যাতে চিকিৎসাসেবা পায় সে জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও কর্মকতা-কর্মচারিরা কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া পর্যাপ্ত ঔষধ ও নতুন ভবনে কাজ করতে পারলে সামনে যে কোন সমস্যার সমাধান করা যাবে বলে মনে করেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

অপর দিকে ডায়রিয়া ওয়ার্ডের আসন সংখ্যা বাড়ানোসহ ঔষধ ও চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার দাবী জানিয়েছেন রোগী ও তাদের স্বজনরা।

-এডি/এইচএ

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ